Press "Enter" to skip to content

জৈব যৌগের প্রাচুর্যতার কারণ ব্যাখ্যা

বর্তমানে জৈব যৌগের সংখ্যা প্রায় আশি লক্ষেরও বেশি; অপরদিকে অজৈব যৌগের সংখ্যা প্রায় এক লক্ষের মতো। জৈব যৌগের সংখ্যাধিক্য বা প্রাচুর্যের কারণ তিনটি; যেমন-

  • সমযোজী বন্ধন দ্বারা অধিক সংখ্যক স্ব-পরমাণু যুক্ত হওয়ার কার্বনের বিশেষ ক্ষমতা, যাকে কার্বন পরমাণুর ক্যাটেনেশন (Catenation) বলা হয়।
  • জৈব যৌগের সমাণুতা (Isomerism) ধর্ম – এ ধর্ম দ্বারা একই আণবিক সংকেতযুক্ত কিন্তু ভিন্ন গাঠনিক সংকেতের বিভিন্ন ধর্ম বিশিষ্ট জৈব যৌগ রয়েছে।
  • জৈব যৌগের পলিমারকরণ (Polymerisation) ধর্ম – এ ধর্ম দ্বারা পাই (π) বন্ধন যুক্ত ছোট জৈব অণু অসংখ্য সংখ্যায় নিজেদের মধ্যে যুক্ত হয়ে বড় অণুযুক্ত নতুন যৌগ গঠন করে। যেমন- ইথিলিন থেকে পলিইথিলিন

এ তিনটি বৈশিষ্ট্যের জন্য মূল কারণ হলো কার্বনের তড়িৎ ঋণাত্মকতার মান 2.5 এবং কার্বন-কার্বন বন্ধন শক্তি 347kJ mol⁻¹

Chemistry Haters
Chemistry Haters

View all posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

           © All Rights Reserved